(CLICK ON CAPTION/LINK/POSTING BELOW TO ENLARGE & READ)

Wednesday, February 20, 2013

সি পি আই (এম)-কে জানালো নির্বাচন কমিশন আইনশৃঙ্খলার অবনতির কথা কবুল করেছে রাজ্য সরকার



সি পি আই (এম)-কে জানালো নির্বাচন কমিশন আইনশৃঙ্খলার অবনতির কথা কবুল করেছে রাজ্য সরকার

নিজস্ব প্রতিনিধি

নয়াদিল্লি, ১৯শে ফেব্রুয়ারি — পশ্চিমবঙ্গে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির গুরুতর অবনতির কথা নির্বাচন কমিশনের কাছে কবুল করেছে রাজ্যের তৃণমূল সরকার। পশ্চিমবঙ্গে তিনটি বিধানসভা কেন্দ্রে উপনির্বাচনের প্রাকমুহূর্তে বিধি ভেঙে পুলিসের শীর্ষস্তরে রদবদলের সাফাই দিতে গিয়ে কমিশনের কাছে এই স্বীকারোক্তি করেছে রাজ্য সরকার। ভারতের নির্বাচন কমিশনের তরফে সি পি আই (এম) পলিট ব্যুরো সদস্য সীতারাম ইয়েচুরিকে লেখা একটি চিঠিতে বিষয়টি স্পষ্ট হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিরুদ্ধে নির্বাচনী বিধিভঙ্গের অভিযোগ করে কমিশনের কাছে সি পি আই (এম) যে চিঠি লিখেছিলো, তারই জবাবে সোমবার পার্টিকে এই চিঠি পাঠিয়েছে নির্বাচন কমিশন। পার্টির তরফে মঙ্গলবার কমিশনের চিঠিটি প্রকাশ করা হয়েছে।

সি পি আই (এম) এদিন বলেছে, রাজ্য পুলিসের অতিরিক্ত ডিরেক্টর জেনারেল (আইনশৃঙ্খলা) পদে রদবদলে যে নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গের গুরুতর ঘটনা ঘটেছে, তা নির্বাচন কমিশনের সরকারী চিঠিতেই প্রমাণিত হয়েছে। পাশাপাশি, পশ্চিমবঙ্গে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির ব্যাপারে আমাদের বক্তব্যই যে সঠিক, তা-ও প্রমাণিত হয়েছে। তৃণমূল কংগ্রেসের নেতারা মুখে এই অভিযোগ অস্বীকার করলেও, খোদ রাজ্য সরকারই একথা স্বীকার করেছে।

ইয়েচুরিকে লেখা চিঠিতে সোমবার ভারতের নির্বাচন কমিশনের আন্ডার সেক্রেটারি জে কে রাও বলেছেন, ‘পশ্চিমবঙ্গ পুলিসের অতিরিক্ত ডিরেক্টর জেনারেল (আইনশৃঙ্খলা) পদে রদবদলের পদক্ষেপে নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গের যে অভিযোগ আপনি করেছেন, সে সম্পর্কে রাজ্য সরকার কমিশনকে লিখিতভাবে নিজেদের বক্তব্য জানিয়েছে। রাজ্য সরকার জানিয়েছে, গত ১২ই ফেব্রুয়ারি কলকাতায় একটি ঘটনা ঘটে, যার পরিণতিতে পুলিসের একজন সাব-ইনস্পেক্টর খুন হয়ে যান। তারপরেই সাম্প্রদায়িকভাবে স্পর্শকাতর একটি এলাকায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটে। ১৪ই ফেব্রুয়ারি রাতে ওয়েষ্ট বেঙ্গল পুলিস এসটাবলিশমেন্ট বোর্ডের বৈঠক থেকে রাজ্য পুলিসের অতিরিক্ত ডিরেক্টর জেনারেল (আইনশৃঙ্খলা) সুরজিৎ পুরকায়স্থকে কলকাতার পুলিস কমিশনার করার সুপারিশ জানানো হয়। একই বৈঠক থেকে কলকাতার তদানীন্তন অতিরিক্ত পুলিস কমিশনার সৌমেন মিত্রকে রাজ্য পুলিসের অতিরিক্ত ডিরেক্টর জেনারেল (আইনশৃঙ্খলা) পদে আনার সুপারিশ করা হয়। রাজ্য সরকার এই সুপারিশ গ্রহণ করে বদলির আদেশ দেয়। রাজ্য সরকার জানিয়েছে, নির্বাচন কমিশনারকে উপেক্ষা করার কোন উদ্দেশ্য ছিলো না তাদের। এমনকি এব্যাপারে নিজেদের ভুল তারা স্বীকার করে নিয়েছে।’ চিঠির শেষে জে কে রাও জানিয়েছেন, ‘গুরুতর আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির কথা বিবেচনা করে রাজ্য সরকারের অনুরোধ অনুযায়ী ঐ পুলিস অফিসারদের বদলিতে অনুমোদন দিয়েছে ভারতের নির্বাচন কমিশন।’


No comments:

Post a Comment